সরিষার তেলে নারকেল বাটায় চিংড়ি ভুনা

সরিষার তেলে নারকেল বাটায় চিংড়ি ভুনা
বরিশালের বেশিরভাগ রান্নাতেই নারকেলের ব্যবহার করা হয়।চিংড়ি ভুনাতেও এর ব্যতিক্রম নয়।যারা কখনো নারকেলবাটা দিয়ে চিংড়ি ভুনা খাননি,এই রেসিপিটা ট্রাই করে দেখবেন। সরিষার তেল, নারকেলবাটা, কাঁচামরিচ, চিংড়ি=ঘ্রাণ ও স্বাদে অতুলনীয়

উপকরণঃ
  1. চিংড়ি ৩০০ গ্রাম
  2. পিয়াজ বাটা টে চামচ
  3. নারকেল বাটা দেড় টে চামচ
  4. হলুদ গুঁড়া / চা চামচ
  5. মরিচ গুঁড়া চা চামচ
  6. আস্ত কাঁচামরিচ - টি
  7. সরিষার তেল, লবণ
প্রণালীঃ
# চিংড়ি মাছের মাথার এবং পিঠের ময়লা পরিষ্কার করে মাছ ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন।এবার মাছে সামান্য লবণ,হলুদ, মরিচ মাখিয়ে নিন।চুলায় তেল গরম দিয়ে মাছ এপাশ ওপাশ ২ মিনিট করে ভেজে তুলে রাখুন।
# বাকি তেলে পিয়াজ ও নারকেল বাটা দিয়ে নারকেলের হালকা ভাজা গন্ধ বের হওয়া অব্দি ভেজে নিন। নারকেল সুন্দর গন্ধ ছাড়লে এতে হলুদ -মরিচ গুঁড়া ও লবণ যোগ করে পরিমাণ মতো পানি দিয়ে মসলা কষিয়ে নিন।
# মসলা তেল ছেড়ে দিলে এতে ভেজে রাখা চিংড়ি মাছ দিয়ে আরও কিছুসময় কষিয়ে নিয়ে চিংড়ির গা মাখা করে পানি ও আস্ত কাঁচামরিচ যোগ করে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিন।পানি শুকিয়ে মসলা তেল ছেড়ে দিলে নামিয়ে পরিবেশন করুন।
বিঃদ্রঃ
১.অনেকেই হয়তো জানেন না,চিংড়ি মাছের পাকস্থলী এর মাথায় থাকে(ব্রেইনের পাশে কালো রঙের থলি)।তাই চিংড়ির মাথার ময়লা ও পিঠের রগ পরিষ্কার করে নিন।আমি কাঁচি দিয়ে চিংড়ির পিঠ ও মাথার খোলস কেটে নিয়ে ময়লা পরিষ্কার করে নিয়েছি।আপনার চাইলে পুরো খোলস ফেলে দিয়েও পরিষ্কার করে নিতে পারেন।
২.আস্ত কাঁচামরিচ অবশ্যই দিতে চেষ্টা করবেন।নারকেলের সাথে কাঁচামরিচ মিলে যে ফ্লেভার সৃষ্টি করে,তা অতুলনীয়। 

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন